শ্রীমঙ্গলে নিহত ৪ নারী চা শ্রমিকের পরিবার পাচ্ছেন পাকা ঘর

শ্রীমঙ্গল (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি:

শ্রীমঙ্গলে আর্থিক সহায়তার পর এবার প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে ঘর পাচ্ছেন উপজেলার লাখাই ছড়া চা বাগানে ঘর লেপার জন্য মাটি আনতে গিয়ে পাহাড় ধসে নিহত হওয়া চার নারী চা শ্রমিকের পরিবার।

বুধবার (২৪ আগস্ট) সকালে প্রথমে ৪টি ঘর নির্মাণের জন্য ইট পাঠানো হয় লাখাই ছড়া বাগানের মাটি চাপায় নিহত চার নারীর বাড়িতে। পরে ঘর নির্মাণের বার্তা নিয়ে তাদের বাড়িতে যান উপজেলা চেয়ারম্যান ভানু লাল রায় ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলী রাজীব মাহমুদ মিঠুন।

এ সময় উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মো. তরিকুল ইসলাম, কালীঘাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রাণেশ গোয়ালা, স্থানীয় উইপি সদস্য আব্দুস সাত্তার, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর উপজেলা সমন্বয়ক মো. জাবেদ এছাড়াও পাহাড় ধসে নিহত পূর্ণিমা ভৌমিক, হীরা রানী ভৌমিক, রীনা ভৌমিক ও রাধামনি মাহালীর স্বামী এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

নিহত রীনা ভৌমিকের স্বামী স্বপন ভৌমিক বলেন, স্ত্রীকে হারিয়ে হতাশার মধ্যে দিন কাটছে আমাদের, দুধের শিশুকে রেখে
আমার স্ত্রী আজ পরপারে। মাটির ঘর লেপার পার জন্য মাটি আনতে গিয়ে মাটি চাপা পড়ে মারা যান আমার স্ত্রী রীনা। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে আমাদের পাকা ঘর বানিয়ে দিচ্ছে, এতে আমরা অনেক খুশি। প্রধানমন্ত্রীর কাছে চির ঋণী হয়ে গেলাম। নতুন পাকা ঘরে বাচ্চাদের নিয়ে থাকবো, মনে করব আমার স্ত্রী রিনা আমার সাথেই আছে বলে কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন স্বপন ভৌমিক।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলী রাজীব মাহমুদ মিঠুন বলেন,
নিহত পরিবারের সদস্যরা মাটির তৈরি ঘরে থাকতেন। সেই ঘর সংস্কারের জন্য মাটি আনতে গিয়ে তারা মাটিচাপায় নিহত হন। স্থানীয় সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদের নির্দেশে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে সম্পন্ন সরকারি ব্যায়ে পাহাড় ধসের মত একটি মর্মান্তিক ঘটনায় নিহত চার নারীর পরিবারকে পাকা ঘর নির্মাণ করে দেওয়া হচ্ছে।

উল্লেখ্য, এর আগে মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য উপাধ্যক্ষ ড. মো. আব্দুস শহীদের ব্যক্তিগত ও জেলা প্রশাসক মৌলভীবাজারের পক্ষ থেকে মাটিচাপায় নিহত চার নারীর পরিবারকে নগদ আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.