খুলনায় স্ত্রী-মেয়ে হত্যায় যুবকের মৃত্যুদণ্ড

খুলনা প্রতিনিধিঃ

খুলনা ডুমু‌রিয়ায় স্ত্রী ও কন্যাকে হত্যার দায়ে স্বামী মাহাবুবুর মোড়লকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তা‌কে ৫০ হাজার টাকা জ‌রিমানা করা হ‌য়ে‌ছে। রায় ঘোষণার সময় আসা‌মি পলাতক ছি‌লেন।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) দুপুরে খুলনা সি‌নিয়র জেলা ও দায়রা জজ আদাল‌তের বিচারক মীর শ‌ফিকুল আলম এ রায় ঘোষণা ক‌রেন।

ওই আদাল‌তের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মো. এনামুল হক এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, হত্যাকাণ্ডের তিন বছর পূর্বে পারিবারিকভাবে মাহবুবুর মোড়লের সঙ্গে রেশমা বেগমের বিয়ে হয়। এর এক বছর পর থেকে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। প্রায়ই মাহবুবুর স্ত্রীকে মানষিক ও শারীরিকভাবে নির্যাতন করতেন।

২০১৫ সালের ৩১ আগস্ট পারিবারিক বিষয় নিয়ে উভয়ের মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে আসামি মাহবুব সকাল সাড়ে ৯টার দিকে স্ত্রী রেশমাকে বাবার বাড়িতে যাওয়ার কথা বললে তিনি যেতে অস্বীকৃতি জানান। এরপর ক্ষিপ্ত হয়ে রেশমা বেগম ও তার এক বছর বয়সী কন্যাকে গলা টিপে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেন। তাদের দুজনের মৃত্যু নিশ্চিত করে মাহবুব পালিয়ে যান।
আসামি মাহবুবুরের পিতা সিরাজ মোড়ল বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রেশমার পিতাকে হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি জানান। তিনি তাৎক্ষণিক পুলিশকে খবর দিলে তাদের মরদেহের সুরাতহাল রিপোর্ট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়।

২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর নিহতের পিতা আবুল কালাম বাদী হয়ে ডুমুরিয়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। একই বছরের ৩১ ডিসেম্বর ডুমুরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মঞ্জুরুল আলম নিহতের স্বামী মাহবুবুকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। আজ সেই মামলার রায় ঘোষণা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.