মাধবকুণ্ড ইকোপার্কে পর্যটক হয়রানি ও চাঁদাবাজি বন্ধে কঠোর উপজেলা প্রশাসন

শাহরিয়ার শাকিল, বড়লেখা প্রতিনিধিঃ

দেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র মাধবকুণ্ড জলপ্রপাত ও ইকোপার্কে আগত পর্যটকদের হয়রানি, টোল আদায়ের নামে ইজারাদারের লোকজনের চাঁদাবাজি ও টিকটকারদের উৎপাত বন্ধে উপজেলা প্রশাসন কঠোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। শনিবার দুপুরে এব্যাপারে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার লক্ষে ইউএনও’র কার্যালয়ে মাধবকুণ্ডের আইনশৃঙ্খলা বিষয়ক এক জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় মাধবকুণ্ডের অভ্যন্তরীন রাস্তায় (কাঠালতলি টু মাধবকুণ্ড) আটোরিকশার ভাড়া সহনশীল পর্যায়ে জনপ্রতি ৩০ টাকা নির্ধারন, আবাসিক হোটেলে প্রশাসনের তদারকি জোরদার, জেলা পরিষদের পার্কিংস্থলের বাহিরে রাস্তায় থাকা কোন ধরণের যানবাহন থেকে টোল আদায় না করা, পার্কিংস্থল দ্রুত সংস্কার, জলপ্রপাতের ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে পর্যটকদের উঠতে না দেয়া, আসাধু ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণসহ পর্যটন বিকাশে নানা সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। উল্লেখ্য সাম্প্রতিক মাধবকুণ্ডে পর্যটক আগমন অনেকাংশে বৃদ্ধি পেয়েছে।

পর্যটকবাহী পরিবহনের টোল আদায় নিয়ে প্রায়ই অপ্রীতিকর ঘটনার সূত্রপাত ঘটে। এছাড়া টিকটকারদের উৎপাত, অসাধু ব্যবসায়ীদের পর্যটক হয়রানিসহ নানা কারণে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটে। নানা অভিযোগের ভিত্তিতে উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও পর্যটন পুলিশ মাধবকুণ্ডে আগত পর্যটকদের সুরক্ষায় কিছু পদক্ষেপ গ্রহণে উদ্দ্যোগী হয়

ইউএনও খন্দকার মুদাচ্ছির বিন আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য দেন থানার ওসি মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার, পর্যটন পুলিশের ইন্সপেক্টর ফয়সল আতিক, এসআই মিজানুর রহমান, রেঞ্জ কর্মকর্তা শেখর রঞ্জন দাস, প্রেসক্লাব সভাপতি অসিত রঞ্জন দাস, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট গোপাল দত্ত, ইউপি চেয়ারম্যান এনাম উদ্দিন, সাংবাদিক আব্দুর রব, জালাল আহমদ, মাধবকুণ্ড জেলা পরিষদ পার্কিং ইজারাদার মেহেদি হাসান কবির প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.