তেরখাদা ইউএনও অভিযানে বাল্যবিবাহ পন্ড, ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

কামরুজ্জামান খান,বিভাগীয় ব্যুরো খুলনাঃ

খুলনা জেলা তেরখাদায় ২০ আগস্ট বিকাল তিনটার দিকে উপজেলার বারাসাত ইউনিয়নের ইখড়ি গ্রামে বিবাহ বাড়ি উপস্থিত হয়ে বাল্যবিবাহ পন্ড করলেন তেরখাদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আসাদুজ্জামান। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আসাদুজ্জামান বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পারেন, ইখড়ি গ্রামের জনৈক নান্টু মোল্যা তার অপ্রাপ্ত বয়স্ক কন্যা (নবম শ্রেণির ছাত্রী) আমেনার বাল্যবিবাহের আয়োজন করেন। ঘটনাটি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আসাদুজ্জামান জানতে পেরে আজ বিকেল ৩ টায় ওই বিবাহ বাড়িতে হানা দেন। তিনি বিবাহ বাড়িতে উপস্থিত হওয়ার সাথে সাথে বিবাহ অনুষ্ঠানে আগত অতিথিরা প্লেট গ্লাস রেখে দিগ্বিদিক ছোটাছুটি করেন। কনের পিতা নান্টু মোল্যাকে আটক করেন। অতঃপর তিনি কন্যাকে বাল্যবিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ করবেন না মর্মে একটি মুচলিকা উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট প্রদান করেন। অপ্রাপ্তবয়স্ক কন্যাকে বাল্যবিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ করার অভিযোগে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান পরিচালনা করে বাল্যবিবাহ নিরোধ আইনে কনের পিতা নান্টু মোল্লাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনাকালে পুলিশের অফিসার ফোর্স উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত কন্যার বিয়ের আয়োজন করা যাবে না। এ মর্মে কন্যার অভিভাবক নান্টু মোল্লা মুচলিকা দিয়েছেন।
বাল্যবিবাহ নিরোধে এ অভিযান অব্যাহত থাকবে।
তিনি বলেন, কোনো অবস্থাতে তেরখাদা উপজেলায় বাল্যবিবাহ সংঘটিত হতে দেওয়া যাবে না। যারা আইনের পরিপন্থী কাজ করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বাল্যবিবাহ একটি সামাজিক ব্যাধি। এই ব্যাধি থেকে তেরখাদা বাসীকে মুক্ত করতে হবে। তিনি বলেন বাল্যবিবাহ নিরোধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। আইন অমান্যকারী সে যেই হোক তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.